বাংলা জুরে ভোটের হাওয়া। চলছে প্রচার, সরকার বিরধীপক্ষ, ঘাত প্রতিঘাত সব মিলিয়ে সরগরম বাংলার রাজনীতির মঞ্চ। বাংলা তথা কলকাতা শহরের আনাচে কানাচে উঁকি দিচ্ছে নানান রং। কোথাও সবুজ ঘাসে ঘেরা,  তো কোথাও আবার চোখ রাঙাচ্ছে গেরুয়া পতাকা, কোথাও আবার রক্তিম আবহ থমথমে। চায়ের দোকানে তর্কের ঝড়, বাসে ট্রামে অফিস ফিরতি কোনো প্রবীণের যুক্তিকে খন্ড বিখন্ড করছে কোনো তরুণের পাল্টা যুক্তি। সব মিলিয়ে চিরকালের রাজনীতি সচেতন বাঙালি যে আজও চোখ উল্টে বসে নেই তার প্রমাণ মেলে প্রতি পদক্ষেপে। শুধু কাগজ নেড়ে উচ্চ স্বরে পলিটিকাল তর্কে থরহরি কম্প নয়, মানুষকে সচেতন করার কাজে ব্রতী হয়েছেন বহু মানুষ। পত্র পত্রিকা থেকে রঙ্গমঞ্চ, সচেতনতা বার্তা ছড়িয়ে পড়ছে সমস্থ মাধ্যমের মধ্য দিয়েই। বাঙালীকে গনতন্ত্রের আলোয় দিশা দেখানোর কাজে পিছিয়ে নেই শহরের নাট্য কর্মীরাও। নাটকের মধ্য দিয়ে সমকালীন পরিস্থিতি কে তুলে ধরার প্রচেষ্টায় কলকাতার নাট্যগ্রুপ ‘কাহিনী’ মঞ্চস্থ করতে চলেছেন তাদের চতুর্থ নাটক ‘হীরক শহর’।

সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘কাহিনী’ নাট্যগ্রুপের উদ্যোগে আগামী ২৭শে জানুয়ারি মঞ্চস্থ হতে চলছে “হীরক রাজার দেশে” অবলম্বনে অরুণাভ দে এর নাটক “হীরক শহর”। তবে এক্ষেত্রে রয়েছে মঞ্চভেদ, যাকে বলে টুইস্ট। হীরক শহরের হীরে মানিকের খোজে দর্শককে যেতে হবে না কোনো চারকোনা উঁচু মতন মঞ্চের নীচে পাতা সারি সারি দর্শক আসনের অংশ হতে। বরং কফির কাপ হাতে ক্যাফেতে বসেই দেখতে পাবেন পালা। অর্থাৎ কি না ক্যাফে নাটিকা।  এই অভিনব ভঙ্গিমায় নাটক প্রদর্শনের কারণ হিসেবে “হীরক শহর” এর লেখক অরুণাভ দে জানিয়েছেন তাদের এই নাটকের মূল উদ্দেশ্য মানুষের কাছে সমকালীন পরিস্থিতি কে তুলে ধরা। তার জন্য এই নাটক যত বেশি মানুষের কাছে পৌঁছবে,ততই সফল হবে তারা। থাকথিত থিয়েটার প্রেমি মানুষ, যারা অডিটোরিয়ামে গিয়ে নাটক দেখেন সে সংখ্যা খুব বেশি নয়। তাছাড়া কোভিড আতঙ্ক এখনো কাটেনি, মানুষ এখনো অডিটোরিয়ামে যেতে ভরসা পাচ্ছে না। তাই এই নাটককে অডিটোরিয়ামের গন্ডীতে আটকে রাখতে চায়নি টিম ‘কাহিনী’। মানুষের কাছে পৌঁছাতে তারা বেছে নিয়েছেন ক্যাফে কে। সাধারণ মানুষের কাছে নাটক কে পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্য আগামী ২৭শে জানুয়ারি স্কোয়ার ফুট ক্যাফেতে আয়োজিত হচ্ছে ‘কাহিনী’ র আজব পালা “হীরক শহর”, সন্ধ্যা ৬ ও ৭ টার ডবল শো এ।

নাটকের গল্প ও পরিচালনায় রয়েছে অরুণাভ দে এবং সহ পরিচালক হিসেবে রয়েছেন ডোনা দাস ও ঈশানী ভট্টাচার্য। সঙ্গীত পরিচালনা করছেন আকাশ ব্যানার্জী, মুকুল কুমার, সুনরিৎ চক্রবর্তী এবং অরুণাভ দে। অভিনয় রয়েছেন অনির্বাণ চক্রবর্তী, অভিরুপ চৌধুরী, ডোনা দাস, ঈশিতা,  সুকন্যা পাল, ফিরোজ সাহ, কৌস্তুভ রায়, মৃত্যুঞ্জয়, সৌপ্রতিম, অভিজিৎ, সুরোজিৎ প্রমুখ। এই নতুন ধরনের অভিজ্ঞতার সাক্ষী হতে দেখে আসা চাই ২৭শে জানুয়ারি স্কোয়ার ফুট ক্যাফেতে “হীরক শহর”। শেষ বেলায় টিকিটের অভাবে যদি ব্রাত্য হন হীরক শহরের অংশ হওয়ার থেকে, চিন্তা নেই সুযোগ পাবেন আবারও। “হীরক শহর” এর পরবর্তী শো আসতে চলেছে আগামী ১৩ই এবং ১৬ই ফেব্রুয়ারী। তাই থিয়েটার কে উৎযাপন করতে গণতন্ত্রকে উৎযাপন করতে অংশ হোন শহরের প্রথম ক্যাফে নাটিকার।

Articale By ঈশানী ধর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here