” উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সকালে ভুলেই গেছিলাম , আমার পরীক্ষা আছে”

0
330

আব্বুলিশ ছবির অন্যতম চরিত্রে অভিনয় করছেন মাঞ্চু দাদা। তারই একান্ত সাক্ষাৎকার নিলেন আমাদের প্রতিনিধি সোমনাথ চ্যাটার্জি

প্রশ্ন – অব্বুলিশ চরিত্র নিয়ে কিছু বলো ? তোমাকে আমরা কিভাবে দেখতে চলেছি এই গল্পে। ?



মাঞ্চু – চরিত্র দেখতে গেলে তো কাজ দেখতে হবে তবে কিছুটা বলতে পারি এখানে এমন এক চরিত্র দেখতে পাবে যে এমন এক ছেলে যে পড়াশোনা না করেও নিজের ফ্রেন্ড সার্কেলে ভালো নং পেয়ে যায় পরীক্ষায়। তার পাশাপাশি সারাদিন যে হাসি মজা ফাজলামি নিয়ে থাকে।

প্রশ্ন – এই গল্পটার মধ্যে এমন কি দেখলে যে কাজ করতে রাজি হলে ?

মাঞ্চু – প্রথমেই বলে রাখি আমি এই গল্পে প্রধান চরিত্রে নেই। আর যদি বলো কি দেখে হ্যাঁ বললাম তাহলে বলবো আমি নিজে প্রথমে তো একজন ইউটিউবার আর ইউটিউবার হিসাবে ছোটো খাটো স্কেচ ভিডিও কমেডি চরিত্র এগুলো করেই থাকি আর এই গল্পে চরিত্রটা আমার নিজের সাথে খুব ভাল যাচ্ছিল। আমি এই মুহূর্তে কোন সিরিয়াস চরিত্র করতে পারবোনা বা বলা ভালো আমার সাথে যাবেনা আর এই গল্পে চরিত্রটাই হচ্ছে মজার যেটা ভেবে হ্যাঁ বলা।

প্রশ্ন – এখন তো অনেক ইউটিউবার ইউটিউবের পাশাপাশি মিউজিক ভিডিও বা সিনেমা অনেক কিছুই করছে যার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই তাদের ট্রোল হতে হচ্ছে তো এই কাজটা করার আগে এরম কোন ভয় ছিল ?

মাঞ্চু – না একদমই না। আগেই বললাম আমি এর আগেও বহু স্কেচ ভিডিও এবং কমেডি ভিডিও বানিয়েছি। যদি চরিত্রটা একদম অন্যরকম হতো তাহলে ভয় লাগতো কিন্তু চরিত্রটা আমার সাথে যায় আর এরম মজার চরিত্র করতে বেশ ভালোই লাগে তাই ভয়ের কোন প্রশ্নই নেই।

প্রশ্ন – যদি এই কাজটা না চলে বা এই কাজের পর যদি খুব ট্রোল হতে হয় তাহলে কি ভবিষ্যতে আর অভিনয় করবে ?

মাঞ্চু – হ্যাঁ অবশ্যই করবো। আর এটুকু বলতে পারি এই কাজটার জন্য কোনভাবেই ট্রোল হবোনা। মানুষ আমার চরিত্রটাকে ভালোবাসবে এটুকু বলতে পারি।

প্রশ্ন – তুমি এর আগেও মিউজিক ভিডিও করেছো এখন অভিনয় ও করছো আজ থেকে পাঁচ বছর পর নিজেকে ইউটিউবার হিসাবে দেখতে চাও নাকি অভিনেতা হিসাবে ?

মাঞ্চু – To Be Very Honest অভিনেতা হিসাবেই দেখতে চাই। আমি বরাবর সেটাই সবাইকে বলে এসেছি। আমার লক্ষ্য ইউটিউবার হয়ে থাকা না। আমি শুরু করেছিলাম ফেসবুক থেকে তারপর ধীরে ধীরে ইউটিউব গ্রো করে কিন্তু আমার প্রধান লক্ষ্য অভিনেতা হওয়া। আমার ইচ্ছা আছে ভবিষ্যতে মজার বা গুন্ডার কিছু চরিত্রে কাজ করা এরম ধরনের করি করতে বেশ ভাললাগে।

প্রশ্ন – এই গল্পে আমরা দেখতে পাচ্ছি উচ্চমাধ্যমিক এর রেজাল্টের দিন বা স্কুলের শেষ দিন তো মাঞ্চুর জীবনে স্কুলের শেষ দিন
কেমন ছিল ?

মাঞ্চু – মাঞ্চুর জীবনে স্কুলের স্মৃতি খুব খারাপ ছিল। আমি স্কুল জীবনের মজাটাই ঠিকভাবে নিতে পারিনি। আমি স্কুলেও রোজ যেতাম না কারন তখন নাচ শিখতাম আমি আর সারাদিন প্র্যাকটিস থাকতো তাই আর স্কুল যাওয়া হতোনা। আরো অবাক হবে শুনলে যে উচ্চমাধ্যমিক এর পরীক্ষার সকালেও আমি ভুলে গিয়েছিলাম যে আমার পরীক্ষা আছে। আর স্কুলে আমি মেয়ে বন্ধুদের সাথেই বেশি থাকতাম সে নিয়েও অনেক মজা হয়েছে। তবে তারপরেও বেশ ভালো রেজাল্ট করেছিলাম।

প্রশ্ন – তোমার কেন মনে হয় এই ছবিটা সবার দেখা উচিত ? বা দেখলে ভালোলাগবে ?



মাঞ্চু – প্রথমেই যে কারণটা বলবো সেটা হলো এটা একটা Independent কাজ। আর যে প্রোডাকশন থেকে ছবিটা আসছে বা যে পরিচালক সে একসময় অনেক বড়ো বড়ো কাজ করেছে একসময় অনেক বড়ো প্রোডাকশন হাউজের সাথেও টেক্কা দিয়েছে। আর আমার মনে হয় আমরা যারা ইউটিউবার বা নতুন কিছু ক্রিয়েটিভ মাইন্ড নিয়ে কাজ করতে চাই তাদের অবশ্যই এই সিনেমার পাশে থাকা উচিত। আর গল্পটা আমাদের মতো খুব সাধারণ ছেলেমেয়েদের নিয়ে যেটা দেখলে সবাই বুঝতে পারবে।

প্রশ্ন – Last But Not The List নিজের স্যাটা ভাঙ্গা ফ্যানদের কি বলতে চাও ?

মাঞ্চু – এটাই বলবো এরকম ফানি চরিত্রের পাশাপাশি রাগি, প্রেম পিরিতের চরিত্রতেও আমাকে খুব তাড়াতাড়ি দেখতে পাবে এবং এর মধ্যে বেশিরভাগ চরিত্রই আমার সাথে যায়। এতদিন যেমন ভালোবাসা দিয়েছো তেমনি দিয়ে যাও আর অবশ্যই আব্বুলিশ দেখো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here