পয়লা বৈশাখ বা  বাংলা নববর্ষ , বাংলা ক্যালেন্ডারের প্রথম দিন এবং নতুন বছরের দিন।  লুনিসোলার বাংলা পঞ্জিকা অনুসারে  বৈশাখ মাসের প্রথম দিন কেই বছরের প্রথম দিন হিসেবে বিবেছিত হয়।

দ্রীকপাঞ্চং অনুসারে,  যে প্রাচীন বাংলার রাজা শশাঙ্ক কে বাঙালি যুগ শুরু করার কৃতিত্ব দেওয়া হয়, যা গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারে ৫৯৪-তে অনুমান করা হয়।

তবে কেউ কেউ বিশ্বাস করেন যে সম্রাট আকবরের সময়ে বাংলা ক্যালেন্ডার চালু হয়েছিল, সেই সময়  ব্যবহৃত চন্দ্র ইসলামিক ক্যালেন্ডার এবং সৌর হিন্দু ক্যালেন্ডারের সমন্বয়ে একটি নতুন ক্যালেন্ডার তৈরি করার আদেশ দেওয়া হয় রাজকীয় জ্যোতির্বিদ ফাতুল্লাহ শিরাজিকে ।  যদিও গ্রামীণ বাঙালি হিন্দুদের মতে, বাংলা ক্যালেন্ডারের প্রবক্তা সম্রাট বিক্রমাদিত্য।



নানান মতভেদ থাকলেও, বাংলা ক্যালেন্ডারের উদ্ভাবক হিসেবে সপ্তম শতাব্দীর রাজা শশাঙ্ককে দায়ী করা হয়েছে। পরে এটি মুগল সম্রাট আকবর সংশোধন করেছিলেন কর আদায়ের উদ্দেশ্যে। ঐতিহাসিকদের মতে, আকবর দ্বারা অনুসরণ করা চন্দ্র ইসলামিক হিজরি ক্যালেন্ডারটি সৌর কৃষিচক্রের সাথে একত্রে কখনও মিলিত হয় নি। তখন ফ্যাসোলি শান নামে একটি ফসল কাটা ক্যালেন্ডার তৈরি করা হয়েছিল এবং কিছু লোক বিশ্বাস করেন যে এটিই ছিল বাংলা ক্যালেন্ডারের আবির্ভাব।

 

পহেলা বৈশাখ পরিবারের সাথে সময় কাটানো, মেলা পরিদর্শন করা,  বাড়ি পরিষ্কারঙ্ক করা, ঘরগুলি মেঝেতে আল্পনা দিয়ে সাজিয়ে তোলা ইত্যাদি নানা কাজ কে উৎযাপন মাধ্যম হিসেবে বেছে নেওয়া হয়।

পোয়েলা বৈশাখ বাঙালি ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের জন্য নতুন আর্থিক বছরের সূচনাও করে। এ দিন তারা গণেশ ও দেবী লক্ষ্মীরও পূজা করেন। দিনটি উদযাপন করতে বাঙালী নতুন পোশাক এবং মিষ্টি বিতরণের রেওয়াজ এখোনো অব্যাহত।

ঈশানী ধর

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here